বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৩৭ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে : 01712-758460 | প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে : 01712-758460 | প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে : 01712-758460 |
শিরোনাম ::
আজ ০৭ ই আগস্ট ইউনিয়ন পর্যায়ে করোনা টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে অনিয়ম করলে ক্ষমা নেই : প্রধানমন্ত্রী পুলিশকে মানুষের প্রথম ভরসাস্থল হতে হবে শিবালয়ে ১৫ বছর বয়সী কিশোরীর বাল্য বিবাহর হাত থেকে রক্ষা করেন ইউএনও জেসমিন সুলতানা মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খাঁনের বিশেষ দিকনির্দেশনায় ঈদে ঘরমুখো মানুষের নিরাপত্তা জোরদার “সম্প্রীতির মানিকগঞ্জ” কর্তৃক আরিচা লঞ্চ ঘাট ও ফেরিঘাটে ১২০০ পিস মাস্ক বিতরণ শিবালয় মেগা ফিড এর সামনে ফল বোঝাই ট্রাক উল্টে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি। আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে পাটুরিয়া ঘাটের বর্তমান চিত্র পাটুরিয়া ও আরিচা লঞ্চ ঘাট এবং ফেরিঘাট পরিদর্শনে নৌ পুলিশ এসপি আব্দুল্লাহ আরেফ, পিপিএম। মানিকগঞ্জ জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে প্রায় দুই হজার দরিদ্র কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

সেভেন আপের বোতলে কীটনাশক, পান করে প্রাণ গেল ২ বোনের !

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৫ জুন, ২০২০
  • ২২৫ বার পড়া হয়েছে

পাবনার ঈশ্বরদীতে সেভেন আপ মনে করে ক্ষেতের আগাছা নিধনের জন্য ঘরে রাখা কীটনাশক পান করে শিশু দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত খাদিজা (৪) ও রাহিমা খাতুন (৮) ঈশ্বরদী পৌর এলাকার অরণকোলা গ্রামের বাসিন্দা অটোরিকশাচালক বাবু মণ্ডলের মেয়ে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাহিমার মৃত্যু হয়। তার আগে বুধবার রাতে রাহিমার ছোট বোন খাদিজা ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

স্থানীয়রা জানান, গত মঙ্গলবার মায়ের সঙ্গে শিশু খাদিজা, রাহিমা ও ঋতু খাতুন দাশুড়িয়ার আথাইল শিমুল গ্রামে তাদের নানাবাড়িতে বেড়াতে যায়। ওই শিশুদের মামা রোকন উদ্দিন তাঁর ঘরের টেবিলে একটি সেভেন আপের বোতলে কীটনাশক রেখে বাইরে যান।

এ সময় সেভেন আপ ভেবে বোতল থেকে ওই কীটনাশক গ্লাসে ঢেলে পান করে তিন বোনসহ আরো কয়েকজন শিশু। বড়রা সামান্য পান করে উটকো গন্ধের কারণে বমি করে দেয়। কিন্তু ছোট্ট খাদিজা ওই কীটনাশকের বিষক্রিয়ায় নিস্তেজ হয়ে পড়ে। দ্রুত তাকে প্রথমে স্থানীয় চিকিৎসক ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

অবস্থার অবনতি হলে তাদের ঢাকার সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার রাতে তার মৃত্যু হয়। মুলাডুলি ইউনিয়ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রের পরিবারকল্যাণ সহকারী আজিজা খাতুন বর্ণা জানান, রাহিমার শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক ছিল।

অবশেষে সেও তার ছোট বোনের মতো মারা যায়। ঈশ্বরদী পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবুল হাসেম বলেন, শিশুটির বাবার পক্ষে চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে না পারায় স্থানীয়দের সহযোগিতায় হাসপাতালে নেওয়া হলেও ছোট মেয়েটির মতো শেষ পর্যন্ত বাঁচানো যায়নি রাহিমাকেও

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2018 mcnewsbd24.Com
Customized by Mcnewsbd24.Com