বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০১:৫৮ অপরাহ্ন
নোটিশ ::
প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে : 01712-758460 | প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে : 01712-758460 | প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। বিস্তারিত জানতে : 01712-758460 |

ফিলিস্তিন বিষয়ক নীতির প্রতিবাদের পর ইসরায়েলের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়তে তুরস্কের আগ্রহ

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১৪ বার পড়া হয়েছে
রস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান

ইসরায়েলের সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়তে তুরস্ক আগ্রহী বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান। এ লক্ষ্যে দুই পক্ষের গোয়েন্দা পর্যায়ে আলোচনা চলছে জানান তিনি। তবে ফিলিস্তিন বিষয়ে ইসরায়েলের নীতিকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলেও তীব্র সমালোচনা করেছেন তিনি।

গতকাল শুক্রবার (২৫ শুক্রবার) ইস্তাম্বুলে জুমার নামাজের পর এরদোয়ান সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইসরায়েলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে তুরস্কের সমস্যা আছে। এমনটি না হলে আমাদের সম্পর্ক অন্য রকম হতে পারত।

তিনি আরো বলেন, ‘ফিলিস্তিন নীতি আমাদের শেষ সীমারেখা। ইসরায়েলের ফিলিস্তিন নীতি মেনে নেওয়া আমাদের পক্ষে অসম্ভব। তাদের নির্দয় আচরণ মেনে নেওয়া যায় না।’

এরদোয়ান বলেন, ‘শীর্ষ পর্যায়ে কোনো সমস্যা না থাকলে আমাদের সম্পর্ক অনেকটাই ভিন্ন হতে পারত। আমরা সম্পর্ককে আরো ভালো একটি অবস্থানে নিয়ে যেতে চাই।’

১৯৪৯ সালে বিশ্বের প্রথম মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হিসেবে তুরস্কে ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেয়। এরদোয়ানের ক্ষমতা গ্রহণের পরও ইসরায়েল ও তুরস্কের মধ্যে খুবই উষ্ণ সম্পর্ক অব্যাহত থাকে। উভয় দেশের মধ্যে শক্তিশালী বাণিজ্যিক সম্পর্ক বিদ্যমান থাকে।

২০০৭ সালে হামাস গাজা উপত্যাকাকে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের আনুগত্য থেকে মুক্ত করে নেয়। এরপর থেকে ইসরায়েল গাজা উপত্যাকায় কঠোর অবরোধ আরোপ করে এবং পরপর কয়েক বার হামলা করে। এদিকে হামাসকে গণতান্ত্রিক দল হিসেবে আখ্যায়িত করে ফিলিস্তিনের প্রতি সমর্থন জানায় তুরস্ক।

কিন্তু শেষ কয়েক বছর ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের দখলদারিত্বের তীব্র নিন্দা জানায় আঙ্কারা। ২০১০ সালে ইসরায়েলের অবরোধ উপেক্ষা করে ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে ১০ জন তুর্কি কর্মী নিহত হলে প্রথম বারের মতো ইসরায়েলের সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্ক শীতল হয়। ২০১৬ সালে পুনরায় সুসম্পর্ক গড়লেও ২০১৮ সালে দুই দেশ একে অপরের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করে।

২০১৮ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কর্তৃক তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তরের ঘোষণায় গাজা উপত্যকায় প্রতিবাদ মিছিল হয়। এ সময় ইসরায়েল বাহিনীর হামলায় কয়েক ডজন ফিলিস্তিনি নিহত হলে তুরস্ক এবং ইসরায়েলের মধ্যে বিরোধ তৈরি হয়। অতঃপর উভয় দেশ একে অপরের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করে। তবে এরপরও দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য চলেছে।

অবশেষে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে দুই বছর পর ফের রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দেয় তুরস্ক। যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের অংশ হিসেবে উফুক উলুটাসকে নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

সূত্র : আল জাজিরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2018 mcnewsbd24.Com
Customized by Mcnewsbd24.Com